মাননীয় প্রতিমন্ত্রী

সংক্ষিপ্ত জীবনী

মেহের আফরোজ চুমকি 

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়

বেগম মেহের আফরোজ চুমকি জন্মগতভাবেই একজন রাজনীতিবিদ । তিনি ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ১০ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদের ১৯৮ নং আসন গাজিপুর ৫ থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন । এর আগেও তিনি ১৯৯৬-২০০১ এবং ২০০৯-২০১৩ এই দুই মেয়াদে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন । তাঁর বাবা মরহূম মোহাম্মদ মইজউদ্দিন ছিলেন একজন সাহসী মুক্তিযোদ্ধা এবং বাংলাদেশ গণপরিষদের সাবেক সদস্য । তাঁর মা বিলকিস বেগম নারী ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে সামাজিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন । ২০১৪ সালের ১২ই জানুয়ারি মেহের আফরোজ চুমকি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন । দায়িত্ব গ্রহণের সাথে সাথেই তিনি নারীর সক্ষমতা বৃদ্ধির প্রতি গুরুত্বারোপ করেন । সেই সাথে তিনি নারীর রাজনৈতিক অধিকার ও আত্ম-মর্যাদা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করেন । মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তিনি মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, বাংলাদেশ শিশু একাডেমি এবং জাতীয় মহিলা সংস্থা র সকল কার্য্যক্রম তদারকি করেন এবং মুল্যবান নির্দেশনা প্রদান করেন ।

বেগম মেহের আফরোজ সম্প্রতি কমনওয়েলথ উইমেন অ্যাফেয়ার্স মিনিস্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভানেত্রী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন । সেই সাথে তিনি নারী ও শিশু উন্নয়ন বিষয়ক জাতীয় কাউন্সিলের সম্মানিত সদস্য হিসেবে দায়িত্বরত রয়েছেন (এই কমিটির প্রধান হলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী) । তিনি পানি, স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্য বিষয়ক অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ বা এপিপিজি এর সভানেত্রী হিসেবে দায়িত্বরত রয়েছেন । পাশাপাশি তিনি এইচ আই ভি/এইডস, মানব পাচার ও অভিবাসন সংক্রান্ত অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ বা এপিপিজি এর সহ-সভানেত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন । তিনি শিশু উন্নয়ন কাউন্সিলের সহ-সভানেত্রী । জাতীয় এইডস কমিটি ও বিশ্ব শান্তি কাউন্সিলের একজন সম্মানিত সদস্য হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করছেন । লিঙ্গ বৈষম্য সংক্রান্ত ইস্যুগুলো (অ্যাসোসিয়েশন অফ পার্লামেন্ট অন পপুলেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট) নিয়ে গঠিত উপকমিটির একজন আহ্বায়ক হিসেবে তিনি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করছেন ।

বেগম মেহের আফরোজ চুমকি সাবেক সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন । সেসময় তিনি নারী ও শিশু বিষয়ক সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটির সভানেত্রী ছিলেন । সেই সাথে তিনি বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা অ্যাসোসিয়েশন এর প্রেসিডেন্ট, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন । তিনি বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের একজন সদস্য ছিলেন । তিনি আইপিপিএফ-এর রিজীওনাল এক্সিকিঊটিভ কমিটি ফর সাউথ এশিয়া রিজিওনের একজন সদস্য ছিলেন ।  

এইডস নিয়ে সামাজিক কার্য্যক্রমের স্বীকৃতিস্বরূপ বেগম চুমকি ইউএসএইড এর কাছ থেকে পুরষ্কার গ্রহণ করেন । সামাজিক কার্য্যক্রম, বই পড়া এবং খেলাধুলায় তাঁর প্রবল আগ্রহ রয়েছে । তিনি ১৯৫৯ সালের পহেলা নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন । তিনি মোহাম্মদ মাসুদুর রহমানের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এবং তাদের দুজন পুত্রসন্তান রয়েছে । দুজন পুত্রসন্তানই বর্তমানে ইউএসএ-তে অধ্যয়নরত রয়েছেন । নিজের পড়াশোনাতেও তিনি অত্যন্ত সফল ছিলেন । ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগ থেকে তিনি স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন । রাজনৈতিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করায় দেশের জাতীয় রাজনীতির অনেক খুঁটিনাটি বিষয় তিনি প্রত্যক্ষভাবে পর্যবেক্ষণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন । ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, মালদ্বীপ, চীন, ইন্দোনেশিয়া, মালয়শিয়া, ইরান, বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রভৃতি দেশগুলোতে তিনি ভ্রমণ করেছেন । তাঁর ডাক ঠিকানা হল ৭, সিদ্ধেশ্বরী লেন, রমনা, ঢাকা-১০০০ । mafrozechumki@yahoo.com এই মেইল ঠিকানায় তাঁকে সার্বক্ষণিকভাবে পাওয়া যাবে ।       

মেহের আফরোজ চুমকি, এমপি